বিবর্তনবাদ ও ধর্ম

ডারউইনের বিখ্যাত বিবর্তনবাদের সাথে কোনও ধর্ম কি খাপ খায়? বিবর্তনবাদ অনুসারে, মানুষ এবং সব প্রজাতি ধীরে ধীরে প্রাকৃতিক নির্বাচনের মাধ্যমে পৃথিবীতে এসেছে। এই অবস্থান পৃথিবীর সকল ধর্মে বর্ণিত সৃষ্টি প্রক্রিয়ার থেকে আলাদা। গরিলা থেকে মানুষের সৃষ্টি – এটা কোনও ধর্মই মেনে নিতে প্রস্তুত নয়।
আসলে বিজ্ঞান আর ধর্ম কিছুতেই একসাথে মিশে যেতে পারে না। বিজ্ঞানের মতে ধর্ম প্রাকৃতিক নির্বাচনের ফলে সৃষ্ট মানব চরিত্রের একটি বৈশিষ্ট্য মাত্র।
জীববিজ্ঞানীদের মধ্যে বিবর্তনবাদ নিয়ে ঐক্যমত্য হলেও সাধারণ মানুষ এখনও তা মেনে নেয়না। আমেরিকাতেই শতকরা ৯০ ভাগ মানুষ বিবর্তনবাদে বিশ্বাস করেনা, অথচ, একই দেশে অধিকাংশ এলিট বিজ্ঞানীরা তা মানেন। অনেক দেশে ধর্মের অজুহাতে বিবর্তনবাদ পড়ানোই হ্য়না।
আজকে বিজ্ঞানের জগতে যারা বিজ্ঞানে অগ্রগণ্য তারাই দুনি্য়াকে শাসন করছে। জীববিজ্ঞানের প্রয়োগে রোগব্যাধি দূর হয়। কিন্তু আমরা কতকাল জীববিজ্ঞানের এই অমূল্য শাখা বিবর্তনবাদকে অস্বীকার করে চলব?
বিবর্তনবাদ নিয়ে বিশদ জানার জন্য এই সাইটে দেখুন – সুন্দর বাংলায় লেখা বই – পিডিএফ আকারে প্রকাশিত।[wjsK=http://www.mukto-mona.com/Articles/bonna/book/index.htm]

Advertisements

One Response to “বিবর্তনবাদ ও ধর্ম”

  1. imrozahmad Says:

    হুম। আপনার লেখা পড়ে ভাল লাগল। তবে বিজ্ঞান আর ধর্ম একসাথে করা যাবে না বলেই আমার মনে হয়। মান্তেই হবে।
    আমার লেখগুলো পড়লে খুশি হবো।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s


%d bloggers like this: